দেশজুড়ে

বি’স্ফো’রণে নিহ’তদের প্রত্যেক পরিবারকে ১০ লাখ টাকা দেয়ার দাবি ডা. জাফরুল্লাহর

গণস্বা’স্থ্য কে’ন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বি’স্ফো’রণে নিহ’তদের প্রত্যেকের পরিবারকে দশ লাখ টাকা করে ক্ষ’তিপূরণ দেয়ার দা’বি জা’নিয়েছেন। রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জে’র তল্লার বায়তুস সালাত মসজিদের বি’স্ফো’রণস্থল পরিদ’র্শনে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জে যদি অ’গ্নিদ’গ্ধদের চিকিৎ’সার ব্যব’স্থা থাকতো তাহলে ২৪ জনের মধ্যে অ’ন্তত বারোজন লোক কম মা’রা যেতো। এ চিকিৎ’সা তেমন কোনো ক’ঠিন কাজ না। ডা’ক্তারদের একটি অতিরি’ক্ত ট্রেনিং দিলেই তারা এ চিকিৎ’সা দিতে পারে। সরকার দিলে ভালো নইলে আমাকে বললে আমি তিনদিনের ট্রেনিং দিবো তাহলেই ডাক্তাররা,

নারায়ণগঞ্জে বা ঢাকার বাইরেও অ’গ্নিদ’গ্ধদের চিকিৎ’সা দিতে পারবে। দেশের প্রতিটি জে’লা হাসপাতালে বার্ন ইউনিট স্থাপনের দা’বি জা’নান ডা. জাফর উল্লাহ। তিনি নারায়ণগঞ্জে’র বি’স্ফো’রণে নি’হ’তদের প্রত্যেকের পরিবারকে দশ লাখ টাকা করে ক্ষ’তিপূরণ দেয়ারও দা’বি জা’নান।তিনি আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জে’র হাসপাতালগু’লিতে অ’গ্নিদ’গ্ধ রো’গী গেলেই তাকে ঢাকায় পা’ঠানো হয়।

ডাক্তার করবেটা কী? তার তো ট্রেনিং নাই। নারায়ণগঞ্জে’র হাসপাতালে অ’গ্নিদ’গ্ধ রো’গীরা গেলে ডাক্তার আত’ঙ্কে প’ড়ে যায়। পালানোর জন্য সে বলে রো’গীকে ঢাকা নিয়ে যান। সেখানে ভালো চিকিৎ’সা হবে। ভালো না আর কিছু, মানুষের পকেট খালি করা আর কী। তারপরে বলে ইন্ডিয়াতে যাও। একটা দুঃখের বিষয় হচ্ছে এখানে তাদের যে চিকিৎ’সাটা দেওয়া উচিত ছিল সেটা হয় নাই।

এত বড় একটা জে’লা শহর, এত বড় একটা হসপিটাল। এখানে উচিত ছিল স’ঙ্গে স’ঙ্গে ম’রফিন ইন’জেকশন দেয়া। তাহলে ব্য’থাটা থাকতো না। দুর্ভা’গ্য যে আমাদের পর্যাপ্ত ওষুধ নেই। অথচ ওষুধের দাম খুব বেশি না। একটা ইনজে’কশনের দাম ৩৫ টাকা মাত্র। সরকার চাইলে মৃ’ত্যুর সংখ্যাটা আরও কমতে পারতো।

এ ঘ’টনার সুষ্ঠু তদ’ন্ত এবং দো’ষীদের বি’চারের দা’বি জা’নিয়ে তিনি বলেন, তিতাস ক’র্তৃপক্ষের অ’বহেলা স’স্পর্কে তদ’ন্ত হবে, আলোচনা হবে, পরীক্ষা হবে এই সমস্ত আ’জগু’বি কথা না বলে ৭ দিনের মধ্যে একটা বি’চার হওয়া উচিত। দেশে সু’শাসন না থাকলে এসব প’রিস্থিতির উন্নতি হবে না। সুশা’সন হতে হলে সঠিক ভোট হতে হবে।

তোমাদের ক্ষ’মতা তোমাদের হাতে দিতে হবে। যেটা বঙ্গব’ন্ধু করেছিলেন। ওনারা (আওয়ামীলীগ) যদি বঙ্গব’ন্ধুকে শ্র’দ্ধা করেন, সম্মান করেন, তাহলে উনি যা ক’রতে চেয়েছেন তা করা উচিৎ।

ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, আজকে পেশাজীবীরা নারায়ণগঞ্জে আসার জন্য পা’গল হয়ে গেছেন। এখানে থাকলে প্রমোশন হবে আরও নানা কিছু হবে। পু’লিশের লোকজন দু’র্নী’তিবাজ ধ’রার চাইতে মা’দ’ক ধ’রতে উৎসাহী বেশি। কারণ মা’দ’ক ব্যবসায়ী ধ’রলে লাভও বেশি।

গত শুক্রবার সদর উপজে’লার পশ্চিম তল্লা এলাকার বায়তুস সালাত জামে মসজিদে ভ’য়া’বহ বি’স্ফো’রণে’র ঘ’টনা ঘ’টে। এতে এখন পর্যন্ত ২৪ জনের প্রা’ণহা’নি হয়েছে। গু’রুতর দ’গ্ধ আরও ১৩ জন জাতীয় শেখ হাসিনা বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জা’রি ইন্সটিটিউটে চিকি’ৎসাধীন অব’স্থায় আছেন।

Related Articles

Back to top button