কুয়াকা’টায় তরুণীর স’ঙ্গে রাত কাটিয়ে দরজা আ’টকে পালালো যুবক

34

দীর্ঘদিন মুঠোফোনে কথাবার্তা বলার পর এক তরুণীকে কুয়াকা’টায় নিয়ে যায় আল আমিন নামের এক যুবক। দুজন সারারাত একস’ঙ্গে কা’টিয়ে সকালে অ’ভিযো’গ উঠেছে ধ’ ‘র্ষ ‘ণের।

শনিবার রাতে পটুয়াখালির কুয়াকা’টায় সোনার বাংলা আবাসিক হোটেলে এ ঘ’টনা ঘটে। রোববার সকালে ওই না’রী বা’দী হয়ে মহিপুর থানায় দুইজনের নামে ধ ‘র্ষ’ ণ মা’মলা করেছেন। এ ঘ’টনায় পু’লিশ ধ’ র্ষ’ ণে সহ’যো’গী শামিম নামের এক যুবককে গ্রে’ফতার করে আ’দালতে সোপর্দ করেছে।

জানা গেছে, অ’ভিযু’ক্ত আল আমিন মহিপুর থানার সদর ইউনিয়নের মহিপুর গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের পুত্র। স’হযো’গী শামিম মহিপুর ইউনিয়নের কোমরপুর গ্রামের হোটেল মালিক দেলোয়ারের ‘পুত্র। মা’মলা এজাহারসূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘ সাত মাস ধরে বিয়ের প্র’লোভ’নে ওই না’রীকে ধ ‘র্ষ’ণ করে আসছে আল আমিন।

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল রাতে কুয়াকা’টার সোনার বাংলা হোটেলের ১০৪ নস্বর কক্ষে নিয়ে তাকে ধ ‘র্ষ’ ণ করে সে। ধ’ র্শ’ণের পর বাহির থেকে দরজা আ’টকে পা’লিয়ে যায় আল আমিন। পরে ওই না’রী পরিবারের সাথে যোগাযোগ করলে তারা এসে উ’দ্ধা’র করে। এ প্রস’ঙ্গে মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, অ’ভিযু’ক্ত আল আমিনকে গ্রে’ফতারের চেষ্টা অব্যাহ’ত আছে।