রাতে ছাত্রীদের রুমে ডাকতেন মেডিকেলের এমডি, টয়লেটে গো’পনে ক্যামেরা

147

রাজশাহীর বেসরকারি শাহ মখদুম মেডিকেল কলেজ হা’সপাতা’লের ব্যব’স্থাপনা পরিচালক (এমডি) মনিরুজ্জামান স্বা’ধী’নের বি’রুদ্ধে যৌ* ন হয় রানির অ’ভিযো’গ ক’রেছেন আবাসিক ছাত্রীরা।

রোববার (২৯ নভেম্বর) প্রতিষ্ঠানটির সামনে একাধিক শিক্ষার্থী গণমাধ্যমক’র্মী দের কাছে এ অ’ভিযো’গ ক’রেন। তারা বলেছেন, এমডি স্বা’ধী’নের দুর্ব্যবহার ও যৌ’ ন হয় রানির কারণে ভীতসন্ত্রস্ত তারা। এসব নিয়ে প্রতিবা’দ করলে স্বা’ধী’ন ও তার ক’র্মচারীদের রোষানলে পড়তে হয় শিক্ষার্থীদের। এদিকে অ’ভিযো’গ খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যব’স্থা নেওয়ার,

আশ্বা’স দিয়েছেন স্বা’স্থ্য ও পরিবার ক’ল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন ক’র্মকর্তারা। স’ম্প্রতি মেডিকেল কলেজ হা’সপাতা’লটি পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নিয়মনীতি ও শর্ত পূরণ না ক’রা’য় গত ২ নভেম্বর স্বা’স্থ্য মন্ত্রণালয় ব’ন্ধের নির্দে’শ দেয়। সংশ্লি’ষ্ট সূত্রে জা’না গেছে, রাজশাহী শাহ মখদুম মেডিকেল কলেজে’র কর্ণধার মনিরুজ্জামান স্বা’ধী’ন।

বেসরকারি এই মেডিক্যালে ২০১৪ সাল থেকে সাতটা ব্যাচে ১৩৯ জন ছাত্রী ও ৭১ জন ছাত্র ভর্তি ক’রা হয়। তারা আবাসন সুবিধা পান। কিন্তু এসব শিক্ষার্থীর নি’রাপত্তা নি’শ্চিত ক’রার দা’য়িত্ব যার হাতে, খোদ তার কাছে সব চেয়ে অনি’রাপদ শিক্ষার্থীরা। বেশ কয়েকজন আবাসিক ছাত্রী অ’ভিযো’গ ক’রেন, রাতে বিনা নোটিশে মেয়েদের কক্ষে,

ঢু’কে যৌ ন হয় রানি ক’রতেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যব’স্থাপনা পরিচালক স্বা’ধী’ন। এ ছাড়া টয়লেটে গো’পনে ক্যামেরা রেখে ছাত্রীদের ন”গ্ন ছবি তোলার অ’ভিযো’গ রয়েছে তার বি’রুদ্ধে। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি ক্ষু’ব্ধ অভিভাবক’রা। আরেক শিক্ষার্থী বলেন, রাত ১২টার পর স্বা’ধী’ন তার রুমে মেয়েদের ডাকতেন। ত

খন ২-১ জন স’ঙ্গে যেতে চাইলে তিনি আপত্তি ক’রতেন। যাকে ডাকা হবে তাকে একা যেতে হয়। এগুলো আ’সলে মেনে নেওয়া যায় না। আম’রা তার দৃষ্টান্তমূলক শা’স্তির দা’বি করছি। অ’ভিযো’গের ব্যাপারে জানতে কলেজটির ব্যব’স্থাপনা পরিচালক মনিরুজ্জামান স্বা’ধী’নের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা ক’রা হলে তার ব্যবহৃত নম্বরটি ব’ন্ধ পাওয়া যায়।

এসব অ’ভিযো’গের সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যব’স্থা নেওয়ার আশ্বা’স দেন স্বা’স্থ্য ও পরিবার ক’ল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বা’স্থ্য সচিব মো. আবদুল মান্নান। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের ওপর কোনো ধ’রনের অত্যাচার হয়ে থাকলে, বিষয়টি আ’ইনি প্র’ক্রি’য়ায় দেখা হবে।

এদিকে গত শুক্রবার শিক্ষার্থীদের মা’রধ’রের ঘ’টনার পর দা’য়ের ক’রা মা ’ম, লায় দুজনকে গ্রে’প্তা’র ক’রতে সক্ষম হলেও বাকিদের ধ’রতে অ’ভিযা’ন চলছে বলে জা’নিয়েছেন রাজশাহী মেট্রোপলিটন পু’লিশ কমি’শনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক। তিনি বলেন, আমাদের তদ’ন্ত চলমান রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে পরবর্তীতে প্রয়োজন অনুসারে আ’ইনগত পদক্ষে’প নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার প্রয়োজনীয় কাজে কলেজটির আবাসিক হলে প্রবেশ ক’রতে চাইলে শাহ মখদুম কলেজে’র ক’র্মচারীরা বহিরা’গতদের নিয়ে হা’ম’লা চালিয়ে প্রা’য় ১২ শিক্ষার্থীকে আ’হত ক’রে। তারা হা’সপাতা’লে চিকি’ৎসাধীন রয়েছেন। হা’ম’লা র ঘ’টনায় ওইদিন রাতে কলেজটির এমডি মনিরুজ্জামান স্বা’ধী’নসহ বেশ কয়েকজনের নাম উল্লেখ ক’রে চন্দ্রিমা থা’নায় মা ’ম, লা হয়েছে। এ মা ’ম, লায় এখন পর্যন্ত দুজনকে গ্রে’প্তা’র ক’রা হয়েছে।