দেহব্যব’সায় বিশ্বে সবার আগে যে দেশ

76

বিশ্বের প্রা’য় সব দেশেই বাড়ছে দে’হব্যবসা। অর্থের বিনিময়ে শ’রীরী খেলায় মত্তের নামই দে’হব্যবসা। বিশ্বের কোথাও এটা স’ম্পূর্ণ বেআ’ইনি। কোথাও আবার আ’ইনি ব্যধতা আছে।

তবে বেশিরভাগ জায়গাতেই বেআ’ইনি হয়েও রম’রমিয়ে চলে। স’ম্প্রতি হাভোস্কোপ রিসার্চ ইনস্টিটিউট এক রিপো’র্ট প্র’কাশ ক’রে এই বিষয়ে। দে’হব্যবসায় অর্থের লেনদেনের ভি’ত্তিতে কোন দেশ কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে তা বলা হয় এই রিপো’র্টে। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক কোন দেশ দে’হ ব্যবসায় কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে—-

১) চিন- বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দেশে দে’হব্যবসার রম’রমা বললে কম বলা হবে। সবচেয়ে বেশি দে’হব্যবসার কে’ন্দ্র চিনেই রয়েছে।দুনিয়ার সবচেয়ে বেশি যৌ’নতা বিষয়ক পণ্য যেমন’ সে’ক্স টয় বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি উত্পাদন হয় চিনেই। চিনে দে’হব্যবসায় বছরে ৭৩ মিলিয়ন মা’র্কিন ডলারের লেনদেন হয়।

যা বিশ্বের বাকি দেশগু’লির চেয়ে অনেক বেশি ২) স্পেন- দে’হব্যবসার স্বর্গরাজ্য। বছরে ৫০ মিলিয়ন মা’র্কিন ডলার লেনদেন হয়। ৩) জা’পান-দে’হব্যবসা নিয়ে আ’ইন বেশ সরল। এতে জা’পানের দে’হব্যবসা বেশ জাঁকিয়ে চলছে। জা’পানে দে’হব্যবসায় বছরে ২৪ মিলিয়ন মা’র্কিন ডলারের লেনদেন হয়।

৪) দক্ষিণ কোরিয়া-দে’হব্যবসা স’ম্পূর্ণ অ’বৈ’ধ’ তবুও দেশটিতে বছরে ১৪.৬ মিলিয়ন ডলার দে’হব্যবসায় লেনদেন হয়। ৫ নম্বরে আছে মা’র্কিন যু’ক্তরাষ্ট্র। আরোও পড়ুনঃ দু’হাতের তালু মিলেয়ে অর্ধচন্দ্র আছে? জেনে নিন আপনার ভাগ্য——– হাতের রেখা অনেক কথা বলে। জ্যোতিষে যদি বিশ্বা’স থাকে তবে দেখে নিন আপনার দুই হাত জোড়া করলে যে অর্ধচন্দ্র তৈরি হচ্ছে’ সেটি কেমন।

দুই হাত মিলিয়ে অর্ধচন্দ্র সকলেরই হয়। কিন্তু’ সবার সমান হয় না। হস্তরেখা দেখে ভাগ্য জা’না যায়। জ্যোতিষে বিশ্বা’স থাকুক আর না থাকুক এটা মানতেই হবে যে ভারতে হস্তরেখা বিশ্লেষণ একটা প্রাচীন পদ্ধতি। বিশ্বা’স মতে’ আপনার বিবাহ থেকে চাকরি’ ব্যবসা সবই লেখা আছে আপনার হাতের তালুতে।

এবার আপনার নিজে’’র হাত নিজে দেখে নিন। দুই হাতের তালু পাশাপাশি রাখু’ন। দেখু’ন দুই হাতেই কনিষ্ঠ আঙুলের ঠিক নীচ থেকে একটি ক’’রে রেখে তর্জনির দিকে এগিয়ে গিয়েছে এবং রেখাটি মধ্যমা ও তর্জনির মধ্যবর্তী জায়গায় কিছুটা উপরের দিকে উঠে গিয়েছে। এবার পাশপাশি দু’টি হাতের তালু রেখে দেখু’ন একটি অর্ধচন্দ্র তৈরি হয়েছে।

সকলেরই কমবেশি অর্ধচন্দ্র তৈরি হবে কিন্তু সেটি ঠিক কেমন হয়েছে তার উপরে নির্ভর করছে আপনার চা’রিত্রিক বৈশিষ্ট্য। আর তার স’ঙ্গে স’ঙ্গে আপনার ভাগ্য। জ্যোতিষ মতে’ এই রেখাটিকে বলা হার্ট-লাইন বা হৃদয়-রেখা। যদি দেখা যায়’ আপনার দুই হাত মিলিয়ে একটি সুন্দর অর্ধচন্দ্র রেখা তৈরি হয়েছে তবে মনে’

রাখবেন আপনি অত্যন্ত ক’ঠোর মনের মানুষ। আপনার ভাগ্য আপনি নিজেই গড়ে নেন। ক’র্মক্ষেত্র আপনি সাফল্য পান। আপনার মধ্যে নেতৃত্বের গুণ আছে। তবে মনে রাখবেন সকলের হাতেই এমন অর্ধচন্দ্র তৈরি হয় না। অনেকের ক্ষেত্রে দু’টি রেখা মিলিয়ে প্রা’’য় সরলরেখার কাছাকাছি চেহারা নেয়। এমন যাদের হৃদয় রেখা’ তাঁরা খুবই হৃদয়বান হন।

সহজ’ সরল জী’বন পছন্দ ক’’রেন। ক’ঠিন সিদ্ধা’ন্ত নিতে হলে অপরের উপরে নির্ভর ক’’রেন। এই বি’’চার অনুসারে বোঝা যায়’ একজন মানুষের হৃদয় কেমন। দুই হাতের হৃদয় রেখার মি’লন যত বেশি অর্ধচন্দ্রাকৃতি সেই মানুষ তত ক’ঠোর মা’নসিকতার।

আর যত বেশি সরলরেখার কাছাকাছি ততবেশি নরম হৃদয়ের মানুষ। আর হৃদয়ই তো মানুষের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য তৈরি ক’’রে। আর সেই চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য অনুসারেই তৈরি হয় কাজে’’র জগৎ’ সাংসারিক ক্ষেত্রের সাফল্য’ ব্য’’র্থতা।