বয়ফ্রেন্ড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, ঘণ্টায় ৪০০ টাকা!

2277

চাইলে এখন প্রেম ক’রাকে আপনি চাকরি হিসেবেও নিতে পারেন। উচ্চ মাধ্যমিক পাশ বেকার ছেলেদের বয়ফ্রেন্ডের চাকরি দিচ্ছে একটি সংস্থা। জা’না যায়, একাকী মেয়েদের একাকিত্ব কাটাতে বয়ফ্রেন্ড জোগাড় ক’রে দিচ্ছে সংস্থাটি।

যে নারী বয়ফ্রেন্ড ভাড়া করবে তার নাম এবং সমস্ত তথ্য গো’পন রাখা হবে। তবে বয়ফ্রেন্ড বুক ক’রার ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম আছে। কোনো নারী যদি বয়ফ্রেন্ড ভাড়া ক’রতে চান তাহলে তাকে অনলাইনের মাধ্যমে পুরো প্র’ক্রি’য়া সম্পন্ন ক’রতে হবে। ‘রেন্ট এ বয়ফ্রেন্ড’ নামের একটি অ্যাপের মাধ্যমে এটি ক’রা যাবে।

এই চাকরির পারিশ্রমিক ঘণ্টায় ২৫০ থেকে ৪০০ টাকা। ছেলের যোগ্যতা অনুপাতে নির্ধারণ হবে টাকার অঙ্ক। সে কত শিক্ষিত, দে’খতে কেমন এসব বিষয় তার যোগ্যতা হিসেবে পরিগণিত হবে। যে ছেলের গুণ যত বেশি হবে টাকার অঙ্কও তত বাড়বে। তবে ভাড়ার সমস্ত টাকা ‘বয়ফ্রেন্ড’ হিসেবে কাজ ক’রা ছেলেটি নিতে পারবে না।

তার কিছু অংশ দিতে হবে ওই সংস্থাকে। আবার যে নারী বয়ফ্রেন্ড ভাড়া নেবে তার জন্যেও রয়েছে কিছু শর্ত। যেমন- ভাড়া ক’রা বয়ফ্রেন্ড নিয়ে কোনো পার্টিতে যাওয়া যাবে না। তার স’ঙ্গে কোনো শা’রীরিক স’স্পর্ক ক’রা যাবে না ইত্যাদি। আপাতত ভারতের মুম্বাই ও পুনে শহরে এই পরিষেবা চালু হয়েছে।

জে’নে নিন ধূমপান ছাড়ার ৮ উপায়
ধূমপান স্বা’স্থ্যের জন্য ক্ষ’তিকর-এটা জা’নেন না এমন মানুষ কোথাও নেই। কিন্তু জা’নার পরও এই ধূমপান ক’রে থাকেন অনেকেই। ধূমপানের ফলে ক্যা’ন্সার, হৃদরো’গের আশ’ঙ্কাসহ বিভিন্ন রো’গের ঝুঁ’কি বেড়ে যায়। এর পরও মানুষ ধূমপান ত্যা’গ ক’রতে ব্য’র্থ হন।

ধূমপানের ক্ষ’তিকর দিকগুলো সবার জা’না। এরপরও অনেকে ধূমপান চালিয়ে যাচ্ছেন আবার অনেকে চেষ্টা করছেন ছে’ড়ে দিতে। কিন্তু ছাড়তে পারছেন না! নিরাশ হবার কিছু নেই, তাদের জন্য উপায় আছে কিন্তু। আসুন জে’নে নিন ধূমপান ছাড়ার ৮ উপায়:

# ধূমপান ছাড়ার জন্যে প্রথমে দরকার ইচ্ছাশ’ক্তি। আপনার এই ইচ্ছাশ’ক্তি যত প্রবল হবে ততো তাড়াতাড়ি আপনি ধূমপান ছাড়তে সক্ষম হবেন।

# অনেকেই সিগারেট ছাড়ার কথা ভেবে পকে’টে সিগারেট রাখেন না। ভাবেন,পকে’টে থাকলেই খেতে ইচ্ছে করবে। তারা বুঝতে পারেন না যে, স’ঙ্গে না থাকলে ধূমপানের ইচ্ছেটা আরও বেশি হবে। পকে’টে সিগারেট না রাখলে দেখা যাবে, আপনি অন্যের কাছ থেকে সিগারেট চেয়ে নিচ্ছেন। তাই সিগারেট ও ম্যাচ পকে’টেই রাখু’ন।

# আপনি শুধু খেয়াল রাখু’ন, কখন আপনি সিগারেট ধ’রান। ধূমপানের ইচ্ছা একেকজনের মধ্যে একেক সময়ে জাগে। কেউ টেলিফোনে আলাপ ক’রতে ক’রতে, কেউ কোনো আলোচনার শুরুতে, কেউ টিভি দেখার সময়, কেউ খাবারের পর পর, কেউ বা চায়ের কাপে চুমুক দিতে দিতে সিগারেট ধ’রান। এ সময়গুলোতে অনেকটা নিজে’র অজান্তেই সিগারেট ধ’রিয়ে ফেলেন। যদি সিগারেট ধ’রিয়েই ফেলেন, তখন নিজেকে জিজ্ঞেস করুন, আপনি এখন সত্যি সত্যি সিগারেট খেতে চান কিনা?

# যদি সত্যি সত্যিই সিগারেট খাওয়ার ইচ্ছা হয়, তাহলে অন্যসব কাজ বাদ দিয়ে আরাম ক’রে বসুন। চুপ’চা’প বসে সিগারেট খান। মনোযোগ দিয়ে সিগারেট খান।

# সিগারেট খাওয়ার সময় শ’রীরের প্রতি মনোযোগ দিন। চোখ ব’ন্ধ ক’রে সিগারেটে টান দিয়ে অবলোকন করুন, সিগারেটের ধোঁয়া নাক দিয়ে যাচ্ছে। যেতে যেতে তা একটা গোখরা সাপের আ’কার ধারণ করছে। ফু’সফুসে গিয়েই ফণা তুলে ছোবল মা’রছে আর ঢেলে দিচ্ছে নিকোটিন নামের বিষ।

একটা বিষাক্ত সাপ ছোবল মা’রলে আপনার দে’হ-মনে যে অনুভূতি সৃষ্টি হতো ক্ষণিকের জন্যে সে অনুভূতি সৃষ্টি করুন। স্বতঃস্ফূর্তভাবে সে অনুভূতি না এলে অভিনয় করুন। (মনে করুন, মঞ্চে নাটক করছেন। নাটকে আপনাকে অভিনয় ক’রতে হচ্ছে সাপে আক্রা’ন্ত পথিকের ভূমিকায়। সত্যি সত্যি সাপ ছোবল মা’রলে আপনার যে মনোদৈ'হিক প্র’তিক্রিয়া হতো, তাই করুন।) মনের চোখে আপনার নাক মুখ গলা হৃৎপিণ্ড পাকস্থলীর প্র’তিক্রিয়া অবলোকন করুন।

# পুনরা’য় সিগারেটে টান দিন। অবলোকন করুন, আরেকটা গোখরা সাপ ফু’সফুসের দিকে যাচ্ছে। পূর্বের প্র’ক্রি’য়ার পুনরাবৃত্তি করুন।

# এ পদ্ধতিতে পুরো সিগারেট শেষ করুন। এই পুরো প্র’ক্রি’য়ায় আপনার যে অনুভূতি হলো তা একটি কাগজ বা ডায়েরিতে লিখে রাখু’ন।

# সব কিছু বাদ দিয়ে শুধু মনে রাখু’ন, অন্যের সামনে বা অন্য কোনো কাজ ক’রতে ক’রতে সিগারেট খাবেন না। যখন সিগারেট খেতে ইচ্ছে করবে, অন্য সবকিছু বাদ দিয়ে নিরিবিলি বসে এ প্র’ক্রি’য়ায় সিগারেট খাবেন।

এ প্র’ক্রি’য়া কয়েকদিন চালিয়ে গেলে অচিরেই দেখবেন, আপনার দে’হ-মন নিজ থেকেই সিগারেট প্রত্যাখ্যান করছে। সিগারেটে টান দিতেই কাশি চলে আ’সছে। বিস্বাদ লাগছে। সিগারেটের ধোঁয়া গন্ধ লাগতে শুরু ক’রেছে। এভাবে খুব সহজেই ধূমপানের বদভ্যাস থেকে আপনি পুরোপুরি মু’ক্ত হতে পারবেন।