৯০ বছর বয়সেও সাইকেলে নিয়ে গ্রামে গ্রামে ঘুরে অসহা’য় মানুষদের চিকিৎসা করেন এই বৃ’দ্ধা মহিলা

বয়স হয়েছে ৯০। ১৯৭৩ সালে এই বৃ’দ্ধা একটি স্বা’স্থ্যসেবা ও পরিবার প’রিকল্পনা ওপর ভিত্তি ক’রে পড়াশোনা ক’রেছিলেন। ঠিক যখন সন্ধ্যে হয় তখন প্রত্যেকটা গ্রামে ঘুরে তিনি রো’গী দেখার জন্য বেড়িয়ে পড়েন।

প্রায় ৪৭ বছর ধ’রে তিনি এই কাজে’র স’ঙ্গে যু’ক্ত, এবং এই কাজে’র মধ্যে দিয়ে তিনি বাকি জীবনটাও কাটিয়ে দিতে চান বলে জা’নান। স্বা’স্থ্য সেবা প’রিকল্পনা নিয়ে পড়াশোনা ক’রার পর তিনি হয়ে উঠলেন গরিবের ডাক্তার, যিনি তার সাধ্যমত রো’গ নিরাময় ক’রতেন। তার কাছে রো’গীর সেবা ক’রার অর্থ হলো ধ’র্ম।

এই ধ’র্মকে তিনি এগিয়ে নিয়ে যেতে চান বলেই জা’নান। এই জন্যই তার নাম হয়েছে ‘বাংলার নানী’। এই নানির বাড়ি হল টাঙ্গাইলে। জা’না যায় যে এই বৃ’দ্ধা সাইকেল নিয়ে এ গ্রাম থেকে ও গ্রামে যান রো’গীর সেবা করবেন বলে। যখনই খবর পান গ্রামের কেউ অসু’স্থ তখনই তিনি সাইকেল নিয়ে বেড়িয়ে পড়েন রো’গী দেখার উদ্দেশ্যে।

অনেক সময় রো’গী দেখে বাড়ি ফিরতে তার অনেক রাত হয়ে যায়। তবুও তিনি রো’গীর সেবা করবেন এটাই তিনি জা’নান। জা’না যায় তার নাতি-নাতনিরা তাকে অজস্রবার বারণ ক’রে এই কাজ না ক’রার জন্য, কিন্তু কে শোনে কার কথা। তিনি চান যতদিন তিনি বেঁ’চে থাকবেন ততদিন পর্যন্ত এই রকম ভাবেই গ্রামে গ্রামে ঘুরে অসহায় গরীব মানুষদের তিনি সেবা করবেন।

তিনি চেষ্টা ক’রেন রো’গীর রো’গ নিরাময় ক’রতে, কিন্তু অনেক সময় তিনি যদি না পারে , তাহলে তাদেরকে ভালো হা’সপাতা’লে যোগাযোগ ক’রার বুদ্ধি দিয়ে থাকেন। এই বৃ’দ্ধা স’ম্পূর্ণ বিনামূল্যে রো’গের চিকিৎ’সা ক’রেন। তিনি যতদিন বেঁ’চে থাকবেন ততদিন পর্যন্ত এই রকম সেবা সকলকে ক’রে যাবেন বলে জা’নান।

error: Content is protected !!