একরাতে’ই দোকা’নে, পুকু’র পা’ড়ে ও ছা’দে নিয়ে বিধবাকে ধ’র্ষ’ণ কর’ল ৬ জনে মি’লে

নারা’য় ণগঞ্জ আড়াইহাজার উপজে’লায় দুই সন্তানের জননী বিধবা (৪০) এক নারী গণধ’র্ষণের শি’কার হয়েছে। এক রাতে পর্যায়ক্রমে ৬ জনে ওই বিধবা নারীকে ধ’র্ষণ ক’রে।

গণধ’র্ষনের ঘ’টনায় আলী আক’বরকে (৫০) গ্রেপ্তা’র ক’রেছে পু’লিশ। বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) সকালে উপজে’লার নৈকাহন আখরপাড়া এলাকায় অ’ভিযা’ন চালিয়ে আলী আক’বরকে গ্রেপ্তা’র ক’রে। গ্রে’প্তারকৃত আলী আক’বর ঐ এলাকার মৃ’ত বছির উদ্দিনের ছেলে। এ ঘ’টনায় গণধ’র্ষনের শি’কার বিধবা নারী বা’দী হয়ে আলী আক’বরকে,

প্রধান আসা’মী ক’রে ৬ জনের বি’রুদ্ধে আড়াইহাজার থা’নায় ধ’র্ষণ মা’ম’লা দা’য়ের ক’রে। মা’ম’লার সূত্রে জা’না গেছে, উপজে’লার কায়েমপুর এলাকার দুই সন্তানের জননী বিধবা নারী একই উপজে’লার বিনাইচরস্থ ভাই ভাই স্পিনিং মিলের শ্রমিক। সে গত ৭ অক্টোবর সন্ধা সাড়ে ৭ টায় দোকানে ও’ষু’ধ আনতে যায়।

নৈকাহন বাজারের আনিসের মা’র্কে’টের সামনে পৌছালে আলী আক’বর নারীকে ডাক দিয়ে বাজারের মাছের দোকানে নিয়ে যায়। পরে দোকানের সাটার ব’ন্ধ ক’রে জো’র’পূর্বক ধ’র্ষণ ক’রে। নারী দোকান হতে বের হওয়ার পর বাইরে থাকা একই এলাকার মৃ’ত আব্দুল মালেকের ছেলে মোস্তফা (৫৫), একই এলাকার আনারুল (৪০),

লিটন (৩২) মিলে ওই নারীকে লিটনের পুকুর পাড়ে নিয়ে যায়। একই রাত সাড়ে ৮ টায় তিনজন পালাক্রমে ধ’র্ষণ ক’রে। পরবর্তীতে লিটন ফোন ক’রে শাহীন (৩২) ও তরিকুল (৩৪) ডেকে এনে তারা নারীকে অ’জ্ঞা’ত স্থানে নিয়ে যেতে চায়। এতে রাজি না হওয়ায় শাহীন ও তরিকুল নারীকে জো’র’ ক’রে রাত সাড়ে ১০ টায় একই এলাকার আলী হোসেনের নির্মানাধীন ভবনের ছাদে নিয়ে ধ’র্ষণ ক’রে।

পালাক্রমে ধ’র্ষণের শি’কার হওয়ার পরও বিধবা নারী লোকলজ্জায় ও ছেলে মেয়ের কথা চিন্তা ক’রে ঘ’টনা গো’পন ক’রে রাখে। কিন্তু পরবর্তীতে স্থা’নীয় লোকজনের সাথে আলোচনা ক’রে বুধবার রাতে আড়াইহাজার থা’নায় অ’ভিযো’গ দা’য়ের ক’রে।

আড়াইহাজার থা’নার ভা’রপ্রা’প্ত ক’র্মকর্তা (ও’সি) নজরুল ইসলাম ঘ’টনার সত্যতা নি’শ্চিত ক’রে বলেন, বিধবা নারীকে গণধ’র্ষনের ঘ’টনায় ৬ জনের বি’রুদ্ধে মা’ম’লা দা’য়ের ক’রা হয়েছে। এ মা’ম’লার প্রধান আসা’মী আলী আক’বরকে গ্রেপ্তা’র ক’রা হয়েছে। অন্য আসা’মীদেরকে গ্রেপ্তা’রের অ’ভিযা’ন অব্যা’হত রয়েছে।

error: Content is protected !!