বাইকার নারীকে নিয়ে অশা’লী’ন মন্ত’ব্য: মন্ত্রী বললেন শায়ে’স্তা করতে হবে

11

যশোরে মে’য়ে ফারহানা আফরোজে’র মোটর সাইকেল বহর নিয়ে চলার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাই’রাল হওয়ার পর থেকে এটা নিয়ে নানা মহলে আলোচনা-স’মালোচনা চলছে।

এবার এ আলোচনায় যোগ দিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। উপমন্ত্রী তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে লি’খেছেন, ‘‘একজন নারীকে মটরবাইক চালাতে দেখে যারা তাদের নর্দমা’র আবর্জনাতুল্য নোংরা সংকী’র্ণতার ন’গ্ন উন্মত্ত প্র’কাশ করেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে, সমাজ এই সব কী’টপতঙ্গদের চিনে রাখুক।

এরাই সেইসব লুকায়িত যৌ’ন হয়’রানিকারী, যারা শিষ টিট’কারি টিপ্পনী কাটে, বি’কৃত মা’নসিকতা লালন করে এবং হয় এখনো যৌ’ন হয়’রানি করার সাহস পায় নাই বা শীঘ্রই তা ক’রতে যাচ্ছে। এদের চিনে রাখতে হবে এবং শায়েস্তা ক’রতে হবে’’। করো’নাভাই’রাস মহামা’রীকালে স্বা’স্থ্যবিধি উপেক্ষা,

এবং ট্রাফিক আ’ইন না মানার কারণে মূলত তিনি স’মালোচিত হয়েছে। তবে আবার একটি মফস্বল শহরে এভাবে চলাচলে তার সাহসের প্রশংসাও ক’রেছেন অনেকে। ফারহানার বিয়ে তিন বছর আগে হয়েছে এবং তার একটি সন্তানও রয়েছে বলে স্বজনরা জা’নিয়েছেন।
আরোও পড়ুনঃ জে’নে নিন ধূমপান ছাড়ার ৮ উপায়—-ধূমপান স্বা’স্থ্যের জন্য ক্ষ’তিকর-

এটা জা’নেন না এমন মানুষ কোথাও নেই। কিন্তু জা’নার পরও এই ধূমপান করে থাকেন অনেকেই। ধূমপানের ফলে ক্যা’ন্সার, হৃদরো’গের আশ’ঙ্কাসহ বিভিন্ন রো’গের ঝুঁ’কি বেড়ে যায়। এর পরও মানুষ ধূমপান ত্যা’গ ক’রতে ব্য’র্থ হন। ধূমপানের ক্ষ’তিকর দিকগুলো সবার জা’না। এরপরও অনেকে ধূমপান চালিয়ে যাচ্ছেন আবার অনেকে চেষ্টা করছেন ছে’ড়ে দিতে।

কিন্তু ছাড়তে পারছেন না! নিরাশ হবার কিছু নেই, তাদের জন্য উপায় আছে কিন্তু। আসুন জে’নে নিন ধূমপান ছাড়ার ৮ উপায়: # ধূমপান ছাড়ার জন্যে প্রথমে দরকার ইচ্ছাশ’ক্তি। আপনার এই ইচ্ছাশ’ক্তি যত প্রবল হবে ততো তাড়াতাড়ি আপনি ধূমপান ছাড়তে সক্ষম হবেন।

# অনেকেই সিগারেট ছাড়ার কথা ভেবে পকে’টে সিগারেট রাখেন না। ভাবেন,পকে’টে থাকলেই খেতে ইচ্ছে করবে। তারা বুঝতে পারেন না যে, স’ঙ্গে না থাকলে ধূমপানের ইচ্ছেটা আরও বেশি হবে। পকে’টে সিগারেট না রাখলে দেখা যাবে, আপনি অন্যের কাছ থেকে সিগারেট চেয়ে নিচ্ছেন। তাই সিগারেট ও ম্যাচ পকে’টেই রাখু’ন।

# আপনি শুধু খেয়াল রাখু’ন, কখন আপনি সিগারেট ধ’রান। ধূমপানের ইচ্ছা একেকজনের মধ্যে একেক সময়ে জাগে। কেউ টেলিফোনে আলাপ ক’রতে ক’রতে, কেউ কোনো আলোচনার শুরুতে, কেউ টিভি দেখার সময়, কেউ খাবারের পর পর, কেউ বা চায়ের কাপে চুমুক দিতে দিতে সিগারেট ধ’রান। এ সময়গুলোতে অনেকটা নিজে’র অজান্তেই সিগারেট ধ’রিয়ে ফে’লে ন। যদি সিগারেট ধ’রিয়েই ফে’লে ন, তখন নিজেকে জিজ্ঞেস করুন, আপনি এখন সত্যি সত্যি সিগারেট খেতে চান কিনা?

# যদি সত্যি সত্যিই সিগারেট খাওয়ার ইচ্ছা হয়, তাহলে অন্যসব কাজ বাদ দিয়ে আরাম করে বসুন। চুপ’চা’প বসে সিগারেট খান। মনোযোগ দিয়ে সিগারেট খান।

# সিগারেট খাওয়ার সময় শ’রীরের প্রতি মনোযোগ দিন। চোখ ব’ন্ধ করে সিগারেটে টান দিয়ে অবলোকন করুন, সিগারেটের ধোঁয়া নাক দিয়ে যাচ্ছে। যেতে যেতে তা একটা গোখরা সাপের আ’কার ধারণ করছে। ফু’সফুসে গিয়েই ফণা তুলে ছোবল মা’রছে আর ঢেলে দিচ্ছে নিকোটিন নামের বিষ।

একটা বিষাক্ত সাপ ছোবল মা’রলে আপনার দে’হ-মনে যে অনুভূতি সৃষ্টি হতো ক্ষণিকের জন্যে সে অনুভূতি সৃষ্টি করুন। স্বতঃস্ফূর্তভাবে সে অনুভূতি না এলে অভিনয় করুন। (মনে করুন, মঞ্চে নাটক করছেন। নাটকে আপনাকে অভিনয় ক’রতে হচ্ছে সাপে আক্রা’ন্ত পথিকের ভূমিকায়। সত্যি সত্যি সাপ ছোবল মা’রলে আপনার যে মনোদৈ'হিক প্র’তিক্রিয়া হতো, তাই করুন।) মনের চোখে আপনার নাক মুখ গলা হৃৎপিণ্ড পাকস্থলীর প্র’তিক্রিয়া অবলোকন করুন।

# পুনরায় সিগারেটে টান দিন। অবলোকন করুন, আরেকটা গোখরা সাপ ফু’সফুসের দিকে যাচ্ছে। পূর্বের প্রক্রিয়ার পুনরাবৃত্তি করুন।

# এ পদ্ধতিতে পুরো সিগারেট শেষ করুন। এই পুরো প্রক্রিয়ায় আপনার যে অনুভূতি হলো তা একটি কাগজ বা ডায়েরিতে লিখে রাখু’ন।

# সব কিছু বাদ দিয়ে শুধু মনে রাখু’ন, অন্যের সামনে বা অন্য কোনো কাজ ক’রতে ক’রতে সিগারেট খাবেন না। যখন সিগারেট খেতে ইচ্ছে করবে, অন্য সবকিছু বাদ দিয়ে নিরিবিলি বসে এ প্রক্রিয়ায় সিগারেট খাবেন।

এ প্রক্রিয়া কয়েকদিন চালিয়ে গেলে অচিরেই দেখবেন, আপনার দে’হ-মন নিজ থেকেই সিগারেট প্রত্যাখ্যান করছে। সিগারেটে টান দিতেই কাশি চলে আ’সছে। বিস্বাদ লাগছে। সিগারেটের ধোঁয়া গন্ধ লাগতে শুরু করেছে। এভাবে খুব সহজেই ধূমপানের বদভ্যাস থেকে আপনি পুরোপুরি মু’ক্ত হতে পারবেন।