মাত্র ৫ মিনিটে ১ কেজি রসুনের খোসা ছাড়ানোর সহ’জ পদ্ধতি

6

রসুনের খোসা ছাড়ানো বেশ মুশকিলের কাজ। আর তা যদি হয় বেশি রান্না করার জন্য তাহলে তো কথাই নেই। অর্থাৎ বেশি পরিমান রসুন এর খোসা ছাড়ানোর জন্য। অনেক সময় আম’রা রসুন বেটে ফ্রিজে রাখি।

তখন বেশি পরিমান রসুন আম’রা এক বারে বেটে রেখে দেই। তবে রসুন এর খোসা ছাড়াতে বেশ সময়ের প্রয়োজন হয়। এখন আমি আপনাদের এমন একটি পদ্ধতি শেখাবো, যার মাধ্যমে অ’তি অল্প সময়ের মধ্যে আপনি ১ কেজি রসুনের খোসা ছাড়াতে পারবেন। টিপস: প্রথমে রসুনের কোয়া গুলো ভালো ভাবে ছাড়িয়ে নিন। এবার একটি পাত্রে কুসুম গরম পানি নিয়ে নিন।

পানি কিন্তু কুসুম গরম হতে হবে। না হলে রসুন সেদ্ধ হয়ে যেতে পারে। এই গরম পানিতে ১ কেজি পরিমান রসুনের কোয়া নিয়ে নিন। এভাবে ৫মিনিট রেখে দিন। ৫মিনিট পর দেখবেন রসুনের খোসা নুলে গিয়ে নরম হয়ে গিয়েছে। এই অব’স্থায় হাত দিয়ে ভালো ভাবে কচলে কচলে রসুনের খোসা ছাড়িয়ে নিন। ১ মিনিট ধ’রে কচলাবেন।

সব খোসা ছাড়ানো হয়ে গেলে খোসা ও রসুন কোয়া গুলো আ’লাদা করে নিন। ব্যাস হয়ে গেলো সহ’জে খোসা ছাড়ানো। আরোও পড়ুনঃ অল্প বয়সেই জ’রা’য়ু কে’টে ফেলতে বা’ধ্য হ’চ্ছেন এই এলাকার অনেক না’রীই —-জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে লবণাক্ততা বেড়েছে দেশের উপকূলীয় অঞ্চলে। আর মাত্রাতিরিক্ত এসব লোনা পানির দৈনন্দিন ব্যবহারের ফলে জ’রায়ু সং’ক্রান্ত বিভিন্ন রো’গে আক্রা’ন্ত হচ্ছেন এসব এলাকার নারীরা।

সেজন্য অল্প বয়সেই জ’রায়ু কে’টে ফেলতে বাধ্য হচ্ছেন এই এলাকার অনেক নারীই। সাতক্ষীরা জে’লার শ্যামনগর থা’নার দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরার ৯ নম্বর সোরা গ্রামের আসমা বেগম (৩০)। সাত বছর আগে মাত্র ২৩ বছর বয়সে অপা’রেশনের মাধ্যমে জ’রায়ু কে’টে ফে’লে ন তিনি। আসমা বলেন, ছোট থেকেই আমা’র ধাতুর (সাদাস্রা’ব) স’মস্যা ছিল।

বিয়ের পরে প্রথম সন্তান জ’ন্মের পর থেকেই জ’রায়ুতে জ্বা’লা-পো’ড়া ও য’ন্ত্রণা হতো। একে একে তিন সন্তান জ’ন্মের পর জানলাম জরায়ুতে ঘা’ হয়েছে। তখন অবস্থা খুব খা’রাপ ছিল। পরে খুলনার এক হাসপাতালে ভর্তি হলে অপা’রেশন করে জ’রায়ু ফে’লে তিনি বলেন, আমা’র বাবার বাড়ি ও শ্বশুরবাড়ি গাবুরা ইউনিয়নেই। ফলে জ’ন্ম থেকেই লোনা পানির সাথে বসবাস।

তবে আগের তুলনায় যেন লোনাভাব বেড়েছে। গরমকালে লোনাভাব এত বাড়ে যে, পুকুরের পানি মুখেই নিতে পারি না। অথচ তাতেই গোসলসহ সব কাজ ক’রতে হয়। আসমা’র চেয়ে কম বয়সে জ’রায়ু ফেলতে বাধ্য হয়েছেন তার প্রতিবেশী রওশন আরা পারভীন (২৭)। তার গল্পও একই রকম। প্রায় বছর চারেক আগে জ’রায়ুতে টি’উমা’র দেখা যায়। সে কারণে পুরো জ’রায়ু ফে’লে দেয়া হয় তার।

জ’রায়ু অপারেশনের পর দুজনেরই স্বামী তাদের ফে’লে অন্যত্র বিয়ে ক’রেছেন। শুধু গাবুরা নয়, উপকূলীয় উপজে’লা শ্যামনগরের প্রতিটি গ্রামে জ’রায়ু সং’ক্রান্ত রো’গে ভু’গছেন এমন নারীর সন্ধান পাওয়া যাবে। পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, নারীদের জ’রায়ু সং’ক্রান্ত অসু’খের তী’ব্রতা লোনাপানিপ্রবণ গ্রামগুলোতে বেশি।